Skip to main content

SSC শিক্ষক নিয়োগে একাধিক পরিবর্তন হতে পারে, ইঙ্গিত শিক্ষা দপ্তরের

SSC শিক্ষক নিয়োগে একাধিক পরিবর্তন হতে পারে, ইঙ্গিত শিক্ষা দপ্তরের


শিক্ষা দপ্তরের


Today Bengali News :  প্রার্থীদের টানা ২৩ দিনের ধর্নায় নড়ে চড়ে বসেছে শিক্ষা দপ্তর। তাই তারা চাইছে, School Service Commission শিক্ষক নিয়োগের সরলীকরন করতে। এবং প্রতিবছর যাতে এই পরীক্ষা নেওয়া যায় তার ব্যবস্থা করতে।
শিক্ষা দপ্তরের অফিসার দের সাথে এদিন বৈঠক করেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়।  সূত্রে বলা হয়েছে, পরীক্ষা যাতে প্রতি বছর করা যায়, সে বিষয়ে আইনজ্ঞের পরামর্শ নেবে শিক্ষা দপ্তর। এছাড়ও তিনি বলেন, চাকরি প্রার্থীদের দাবি খতিয়ে দেখার জন্যে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গড়া হবে।

প্রসঙ্গত তৃনমূল সরকার আসার পর থেকে SSC পরীক্ষা হয়েছে মাত্র দু'বার। এবং কোর্টে বার বার কেস হওয়ায়, তার ফল প্রকাশ হতেও অনেক দেরী হয়েছে। এখনও পর্যন্ত আপার প্রাইমারীর নিয়োগ হয়নি। এরফলে স্কুলে শূন্যপদ বেড়ে যাচ্ছে এবং পঠন পাঠনের অসুবিধা তৈরী হচ্ছে। তাই শিক্ষা দপ্তর চাইছে, যত শূন্য পদ প্রতি বছরে তৈরী হবে, তার পরীক্ষা নেওয়ার। এবং এই SSC শিক্ষক নিয়োগের যে প্রসেস সেটিকে সরলীকরন করতে। অর্থাৎ একজন প্রার্থীকে চাকরী পেতে যতগুলি ধাপ পেরোতে হয়, সেই ধাপ কমিয়ে আনতে। এছাড়া SSC নিয়োগের যে ১৫ পাতার নিয়ম বিধি আছে, তাতে অনেক কঠিন শর্ত বলা আছে, সেগুলোকে শিথীল করা।

আরও পড়ুন  অনশনরত SSC চাকরী প্রার্থীদের পাশে এবার কবি শঙ্খ ঘোষ, বিশিষ্টরা


এদিন শিক্ষামন্ত্রী অনশনকারীদের কাছে আর্জি জানিয়েছে তাদের অনশন তুলে নেওয়ার জন্যে। এবং বলেছেন ৫ সদস্যের কমিটি গড়ার।  যারা ১৫ দিনের মধ্যে পুরো বিষয় টি খতিয়ে দেখবেন। তবে এটিও বলেন, নিয়ম মেনে যোগ্যতা অনুযায়ী চাকরী হবে। তাতে কোনো আপশ হবে না।
শিক্ষা মন্ত্রীর কথায়, এখনও অনশণ ভাঙেনি প্রার্থীরা।  তাদের বক্তব্য,  ৫ সদস্যের কমিটির সাথে কথা বলার। কমিটির সাথে আলোচনা করে প্রার্থীরা সিদ্ধান্ত নেবে।
প্রতিদিন নিউজ এলার্ট পেতে ফেসবুকে যুক্ত হন - https://fb.com/tbnewsupdate

আরও পড়ুন  এবার সিমকার্ড ছাড়াই কথা বলুন, এসে গেল নতুন সিস্টেম

Comments

Popular posts from this blog

স্টেশন মাস্টার জব প্রোফাইল, প্রমোশন, স্যালারি, কাজ, অনান্য সুযোগ ডিটেইলস

স্টেশন মাস্টার জব প্রোফাইল, প্রমোশন, স্যালারি, কাজ, অনান্য সুযোগ ডিটেইলস Today Bengali News :  'স্টেশন মাস্টার' শব্দটি শুনলেই একটি সাদা পোষাকের মানুষ আর প্লাটফর্মের ছবি চোখের সামনে ভেসে ওঠে। ছাত্র- ছাত্রী রা অনেক দিন থেকেই অপেক্ষা করে আছে, কবে স্টেশন মাস্টার পদের ভ্যাকান্সি বের হবে! NTPC 2019 নিয়োগের মাধ্যমে স্টেশন মাস্টার পোস্টে অনেক শূন্যপদে নিয়োগ হবে। এবার জেনে নেই, এই স্টেশন মাস্টার পদের কাজ কি, স্যালারি, প্রমোশন, কাজের সময়, ছুটি কেমন পাওয়া যায়, সব কিছু ডিটেইলস। আগে পোস্ট টি ছিল ASM অর্থাৎ অ্যাসিস্টান্ট স্টেশন মাস্টার। এবছর, রেল বোর্ড সেটি পরিবর্তন করে SM. অর্থাৎ স্টেশন মাস্টার করে দিয়েছে। এক লাইনে যদি স্টেশন মাস্টারের দায়িত্ব  বলতে হয়,  তাহলে কোনো একটি নির্দিষ্ট স্টেশনের সমস্ত দায়িত্ব তার কাঁধে থাকে। প্লার্টফর্মের ট্রেন পাসিং, সিগন্যালিং  তার মূল দায়িত্ব হলেও, যাত্রীদের সুরক্ষা, কোনো ঝামেলা হলে স্টেশনে, অসুস্থতা বিষয়ক সমস্যা, আরও স্টেশনের অনান্য যাবতীয় বিষয়ের সমস্ত বিষয়ের জন্যে তাকে জবাবদিহি দিতে হয়।  অনেক ছোটো স্টেশন আছে, সেখানে স্টেশন মাস্টার কে মাঝে মাঝে, পা

কোভিড রোগীদের চিকিৎসা করালে, পরীক্ষায় ১০ শতাংশ নম্বর বেশী পাবে পড়ুয়া রা

কোভিড রোগীদের চিকিৎসা করালে, পরীক্ষায় ১০ শতাংশ নম্বর বেশী পাবে পড়ুয়া রা Breaking News : মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নয়া ঘোষনা ডাক্তারি পড়ুয়া দের জন্যে। বর্তমান সময়ে দ্রুত গতি তে কোভিড আক্রান্তদের সংখ্যা বেড়ে চলেছে। তাই বুধবার নবান্ন থেকে মুখ্য মন্ত্রী ঘোষনা করলেন, যেসমস্ত ডাক্তারী পড়ুয়ারা কোভিড আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা করাবেন, তাদের পরীক্ষায় ১০ শতাংশ করে অতিরিক্ত নম্বর দেওয়া হবে। এছাড়া তিনি আরও বলেন, সমস্ত ডাক্তারি ছাত্র ও জুনিয়র ডাক্তার দের ' কোভিড ওয়ারিয়ার্স' সার্টিফিকেট দেবে রাজ্য সরকার। আর যে সব ডাক্তার রা বেশী কোভিড আক্রান্ত এরিয়াতে কাজ করছেন, তাদের জন্যে ইনসেন্টিভসের ব্যবস্থা করেছেন। রোজ গুরুত্বপূর্ন নিউজ পান, আমাদের ফেসবুক পেজে ও টেলিগ্রামে - ফেসবুক পেজে যুক্ত হন : ক্লিক করুন টেলিগ্রামে যুক্ত হন : ক্লিক করুন  

ইনি হলেন ভারতের সবথেকে শিক্ষিত ব্যক্তি, জেনে নিন মহান ব্যক্তিটি সম্পর্কে

ইনি হলেন ভারতের সবথেকে শিক্ষিত ব্যক্তি,  জেনে নিন মহান ব্যক্তিটি সম্পর্কে ভারতবর্ষের সবচেয়ে অধিক শিক্ষিত ব্যাক্তি!  যাকে হয়তো আপনি, আমি চিনিনা! পয়সার গরম তো জীবনে অনেক দেখলেন ।কিন্ত বিদ্যার এমন গরম দেখেছেন না শুনেছেন কখনও? সবটা শুনলে মাথা ঝিমঝিম করবে, হাত পা’ও অবশ হয়ে যেতে পারে বৈকি।এক জীবনে এত পড়াশোনা কোন রক্ত মাংসের মানুষ করতে পারে, না পড়লে বিশ্বাস হবে না।তাও আবার সেই ভদ্রলোক যদি ভারতীয় হন ! মারাঠি এই ভদ্রলোকের নাম ‘শ্রীকান্ত্ জিচকার’। পড়াশোনার কেরিয়ারটা একবার হাল্কা করে চোখ বুলিয়ে নিন শুধু , তাহলেই মালুম পড়বে ভদ্রলোক কি কাণ্ডটাই না করেছেন। ১.জীবন শুরু MBBS, M.D দিয়ে। ২.এরপর L.L.B করলেন।সাথে করলেন ইন্টারন্যাশানাল ল-এর ওপর স্নাতকোত্তর। ৩.এরপর বিজনেস ম্যানেজমেন্ট এর ওপর ডিপ্লোমা,সাথে M.B.A । 4. এরপর জার্নালিজম নিয়ে স্নাতক। এতদূর পড়ার পর আপনার যখন মনে হচ্ছে লোকটা পাগল নাকি,তখন আপনাকে বলতেই হচ্ছে এ তো সবে কলির সন্ধ্যে । এখনো গোটা রাত বাকি। এই ভদ্রলোকের শুধু স্নাতকোত্তর ডিগ্রীই আছে দশটা বিষয়ের ওপর! স্নাতকোত্তরের বিষয়ের তালিকাটা একবার দেখুন খালি-