About Me

রেলের গুডস গার্ডস পদের জব প্রোফাইল, স্যালারি, প্রমোশন, ডিউটি, ছুটি, ডিটেইলস

রেলের গুডস গার্ডস পদের জব প্রোফাইল, স্যালারি, প্রমোশন, ডিউটি, ছুটি, ডিটেইলস


রেলের গুডস গার্ডস পদের জব প্রোফাইল, স্যালারি



Today Bengali News :  আপনি হয়তো দেখে থাকবেন, মালগাড়ির সবথেকে পিছনের কেবিনে একজন সাদা ড্রেসের ব্যক্তি খাতা নিয়ে বসে থাকে,  কখনও বা ফ্লাগ হাতে। ইনিই হলেন 'গুডস গার্ড'। সহজ কথায়, যেকোনো মাল গাড়ির সবথেকে পিছনের কেবিনের ব্যক্তি টি 'গুডস গার্ড'।  আর সামনের কেবিনে থাকে মালগাড়ির চালক অথার্ৎ অ্যাসিস্টান্ট লোকোপাইলট বা, লোকো পাইলট। তবে আজ জানব, 'গুডস গার্ড' পোস্টের ব্যাপারে।

'গুডস গার্ড' হল মাল গাড়ির ইন চার্জ। এই পোস্টের প্রধান কাজ হল, ট্রেন সঠিক সুরক্ষার সাথে চলছে কিনা সেটি সবসময় খেয়াল রাখা ও চেক করে নেওয়া। স্টেশন মাস্টার বা, ইয়ার্ড মাস্টার এর থেকে একটা ফাইল দেওয়া হয় তাকে, সেখানে মালগাড়ি তে কি কি জিনিষ যাচ্ছে, তার সমস্ত তথ্য পুরন করতে হয়। মালগাড়ির সমস্ত ওয়াগনের দরজা সঠিক বন্ধ আছে কিনা, সেগুলি চেক করে নেওয়া। এছাড়া মালগাড়ির রিপোর্ট অথাৎ কখন, ছেড়েছিল, কত সময়ে পৌঁছে গেছে, সব কিছু রিপোর্ট থাকে তৈরী করতে হয়।

'গুডস গার্ড' পদের মূল  ডিউটি সময় হল ৮ ঘন্টা। কিন্তু ডিউটি ৮ ঘন্টার থেকে বেশী হয়। কারন, বিভিন্ন কারনে ট্রেন লেট করতে পারে, সিগন্যালে দাঁড়িয়ে থাকতে পারে। তবে এর জন্যে এক্সট্রা বেনিফিট থাকে দেওয়া হয়।

এই সমস্ত কারনে 'গুডস গার্ডস ' পদের মানসিক প্রেসার একটু বেশি থাকে। তবে স্যালারির দিকে প্রচুর বেনিফিট পাবেন এই পোস্টে। এবং সেটি আপনার মানসিক প্রেসার কিছুটা কমাতে সাহয্য করবে।

গুডস গার্ড পদের ট্রেনিং পিরিয়ড সাধরনত ৪৫ দিনের হয়। তবে নতুন নিয়মে সেটা ২৮ দিন করার কথা বলা হয়েছিল রেল বোর্ড থেকে। এটি এখনও ঠিক হয়নি, তবে বিগত বছর গুলিতে ট্রেনিং পিরিয়ড চলেছিল ৪৫ দিন।

গুডস গার্ড পদে সাধরনত সপ্তাহে ১ করে করে ছুটি পেয়ে থাকবেন। তবে সেটি যেকোনো দিন হতে পারে। কোনো নির্দিষ্ট দিন নেই। এছাড়া বছরে ১০ টি ক্যাজুয়াল  লিভ, অসুস্থতার ছুটি ১০ টি, লিভ অন এভারেজ পে - ৩০ টি ছুটি পাবেন। ন্যাশেনাল হোলিডে তে ছুটি নাও পেতে পারেন। তবে ন্যাশেনাল হলিডে তে ডিউটি করলে, আপনাকে ওই দিনের ডাবল পে দেওয়া হয়ে থাকে।

'গুডস গার্ড ' পদে বিভিন্ন প্রমোশন আছে। তো প্রথমেই চাকরী পেলে আপনাকে মালগাড়ির গুডস গার্ডে  পোস্ট দেওয়া হয়। এরপর প্রমোশন পেলে প্যাসেনঞ্জার ট্রেনের গার্ড পদে। তারপর প্রমোশন এক্সপ্রেস ট্রেনের গার্ড পদে। এছাড়াও আরও একটি ধাপ আছে। প্যাসেনঞ্জার গার্ড থেকে আপনি প্রমোশন পেয়ে হতে পারবেন সেকশন কন্ট্রোলার। তারপর প্রমোশন পেলে হবেন চিফ কন্ট্রোলার। তবে এই সব  পদ গুলিতে প্রমোশন পেতে গেলে, আপনার অভিজ্ঞতা, ভালো সার্ভিস রেকর্ড, এবং যোগ্যতা থাকতে হবে।

এবার আসি স্যালারি বা বেতন বিষয়ে।  এই পোস্টে ঢুকলেই প্রাথমিক বেতন পাবেন ২৯,২০০ /-। এই পদের গ্রেড পে ২৮০০/ - টাকা। এছাড়া এর সাথে যুক্ত হবে বিভিন্ন অ্যালাউন্স বা ভাতা। আপনি মুল বেতনের সাথে DA তো পাবেন কেন্দ্র সরকারী নিয়ামানুযায়ী। এবং এই পদে উল্লেখযোগ্য অ্যালাউন্স হল ' রানিং অ্যালাউন্স' অর্থাৎ আপনি মাসে ডিউটি আওয়ারে  যত কিলোমিটার ট্রাভেল করবেন, সেই হিসেবে আপনাকে রানিং অ্যালাউন্স দেওয়া হবে। এবং শুধু তাই নয়, এই রানিং অ্যালাউন্সের উপরেও DA পাবেন। এটি এই পদের একটি উল্লেগযোগ্য বিষয়। এছাড়া, আপনি ট্রান্সপোর্ট অ্যালাউন্স পাবেন ১৮০০/- টাকার মত। হাউজ রেন্ট ও পাবেন। তবে হাউজ রেন্ট নির্ভর করে আপনার পোস্টিং জায়গা অনুযায়ী।  মেট্রোপলিটন সিটি হলে ৩০% পাবেন। এবং অনান্য জায়গায় হলে ১০% পাবেন। আপনি যদি রেল কোয়ার্টার নেন, তাহলে হাউজ রেন্ট পাবেন না। এছাড়া অন্যসব পদের মত, পরিবারের মেডিকেল সুবিধা, বাচ্চার পড়াশুনার খরচ পেয়ে থাকবেন।

এবার বলি গুডস গার্ড পদের কিছু সমস্যার কথা। যেগুলো আপনি অন্যকোথাও, কোনো লেখা পাবেন না।  প্রথমেই, নাইট ডিউটি থাকলে আপনার ঘুমানো যাবে না কিছুতেই। ঝড় বৃষ্টি তে পিছনের ছোট্ট কেবিনের মধ্যে আপনার বিভিন্ন সমস্যা হতে পারে।ভিজে যেতেও পারেন। কারন কিছু কিছু মালগাড়ির কেবিনের অবস্থা খুব খারাপ হয়। সেখানে থাকে টয়লেটের অসুবিধা । মেয়েদের ক্ষেত্রে তো প্রবল সমস্যা এটি। তাই মেয়েদের এই পোস্টে আবেদন না করাই ভাল। আপনাকে ভীতু হলে চলবে না।  কারন এমন এমন জায়গায় সিগন্যাল আছে, যেখানে রাতে মালগাড়ি থামলে, চারিদিকে অন্ধকার জনমানবশূন্য লাগবে। কারন পিছনের কেবিনে আপনি একাই থাকবেন। যদিও আপনার কাছে 'ওয়াকি - টকি' দেওয়া হবে, যেটির মাধ্যমে আপনি সামনের চালক কে যেকোনো কথা জানাতে পারবেন। আরও একটি খারাপ জিনিষ, এমন কোথাও ট্রেন থামলো রাতে, যেখানে চোর - বদমাস রা এসে আপনার টাকা পয়সা, ফোন  কেড়ে নিতে পারে। এরকম ঘটনা আমাদের বাংলার মধ্যেই অনেকবার ঘটেছে। তাই গুডস গার্ড রা কখনও দরকারি কাগজ-পত্র জিনিষ ছাড়া অনেক টাকাপয়সা বা দামি জিনিষ রাতের ডিউটি তে নিজের কাছে রাখে না। শীতের রাতে আপনাকে উপযুক্ত পোষাক পরতে হবে, নইলে প্রবল ঠান্ডা হাওয়া ও কুয়াশায় আপনার সমস্যা হতে পারে।

তো এই ছিল মোটামুটি মালগাড়ির গুডস গার্ড পদের কিছু সমস্য। তবে প্রমোশন পেয়ে প্যাসেনঞ্জার ও এক্সপ্রেস ট্রেনে চলে এলে এ সমস্যা গুলো থাকবে না।তবে যারা ট্রেনে ঘুরতে ভালোবাসে,  বিভিন্ন নতুন নতুন জায়গা দেখতে ভালোবাসে, তাদের জন্যে এই পোস্টের বিকল্প নেই।
শেয়ার করুন নীচের হোয়াটঅ্যাপ বাটনে গিয়ে।


Post a Comment

0 Comments